Breaking News :

ভিডিও আপলোড করে নেতিবাচক মন্তব্যের মুখে সুমন

গত বুধবার (২১ এপ্রিল) একটি হাসপাতালে খাবার বিতরণ করেন সুমন। হাসপাতালে খাবার বিতরণের ভিডিও বিকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে নিজের পেজে পোস্ট দেন।

কিন্তু তার ভক্তরা এই ব্যাপারটি সহজভাবে নিতে পারেন নি। শুরু হয় ফেসবুকে তার অনুসারীদর তীর্যক মন্তব্য। ভিডিও আপলোড হওয়ার কিছুক্ষনের মধ্যেই শুরু হয় ফ্যানদের নেতিবাচক মন্তব্য। প্রায় কয়েক হাজার মন্তব্য পরে কয়েক ঘন্টার মধ্যে। দানের ভিডিওকে লোক দেখানো বলে সমালোচনা করছেন তারই ভক্তরা।

ব্যারিস্টার সুমনের পেইজ থেকে নেওয়া কিছু মন্তব্যঃ
মো. ইকবাল মাহমুদ তার কমেন্টে লেখেন – ‘তা আবার ভিডিও করে দেখানো লাগে? আল্লাহ কি দেখেন না? নাকি এসব ফেসবুকে না দিলে মহান সৃষ্টিকর্তা দান খয়রাত কবুল করবেন না? মানুষ আর বোকা নাই, মানুষ সব বোঝে।’

শেখ মোহাম্মাদ সোহাগনুর কমেন্টে লেখেন – ‘এগুলো লোক দেখানো ছাড়া আর কিছু নয়।’

সৈয়দা ইয়াসমিন কমেন্টে লেখেন – ‘আপনার প্রত্যেকটা কাজ প্রত্যেকটা দান আপনি ভিডিও করে সমাজের ছড়িয়ে দেন। এটাই বা কতটুকু গ্রহণযোগ্য ইসলামে। এভাবে দান করে নাকি কেউ।’

গোলাম সাব্বির কমেন্টে লেখেন – ‘নবীজী বলেছেন ডান হাতে দান করলে যেন বাম হাত না জানে। আপনি আছেন লাইট, ক্যামেরা অ্যান্ড অ্যাকশন নিয়ে।’

হিমেল হোসেন হিমু কমেন্টে লেখেন – ‘ক্যামেরা চালু করে দান করা কোত্থেকে শিখছেন? মিয়া কোটি টাকার গাড়ি কিনে লাইভ নাটক বাদ দেন। মানুষের জন্য পারলে নীরবে কিছু করেন।’

কুকান কমেন্টে লেখেন – ‘ব্যারিস্টার সাহেব, লোক দেখানো ইবাদতে আল্লাহ খুশি হন না। আপনার দানকে ধান্ধায় রূপায়িত করবেন না প্লিজ। ব্রিজ কালভার্ট বানিয়ে অনুষ্ঠান করুন– বাহবা পাবেন, ফুটবল টিম গড়ে ক্রীড়াঙ্গনে ভূমিকা রাখুন বাহবা পাবেন—বাট, দান করুন ডান হাতে যেন বাম হাতে টের না পায়।’

আজিজুল হক কমেন্টে লেখেন – ‘এরে ভালো মনে করতাম, এখন মনে করি সবটাই দালালি আর নিজেকে ফোকাস আর লোক দেখানোর জন্য করে।’ এইচএম

ইকবাল কমেন্টে লেখেন – ‘আপনার আসল রূপ দেশবাসী জানে। একটা সময় আপনাকে মন থেকে ভালোবাসতাম। পরে দেখি খুব তেলবাজ। যাই হোক আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য হলে ভালো।’

আশিক কমেন্টে লেখেন – ‘এটা রবের সন্তুষ্টির জন্য নাকি পাব্লিসিটি?’ প্রায় সময়ই সুমন বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের ভিডিও শেয়ার করে তার ভক্তদের সমালোচনার মুখে পরেন।

বাংলা ক্যালেন্ডার