Breaking News :

ইউএনও এর বিচক্ষনতা এবং শান্তিপূর্ন সমাধানে ব্রীজের নিচের দেওয়াল অপসারন

ব্রীজের নিচে একটি ওয়াল গাঁথা হয়। বর্তমানে খালটি শুকনো থাকলেও বর্ষাকালে খালের পানির বাঁধার সৃষ্টি হত। ফলে জমিতে পানি এবং নৌ চলাচল এ মারাত্বক প্রভাব পরতো। কিন্তু ইউএনও একরামুল সিদ্দিকের বিচক্ষনতার দুরুন নিশ্চিত ক্ষতি এবং ভবিষ্যৎ মারামারি থেকে জিনদপুর ইউনিয়নবাসী রক্ষা পেল।

ইউএনও একরামুল সিদ্দিক তার ফেইসবুক এ লিখেন, অবশেষে ব্রীজের তলদেশে বিনা অনুমতিতে অবৈধভাবে তৈরিকৃত দেয়াল অপসারণ করা হচ্ছে। আগামীকাল এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হবে। তবে পাশেই ব্যাক্তি মালিকানাধীন জায়গায় মসজিদটি ও নির্মাণ করা হবে।

আজ অত্র উপজেলার এসিল্যাণ্ড, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান, জিনদপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের উপস্থিতিতে এই সিদ্ধান্ত দেয়া হয়। সব পক্ষ এই সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছেন। এই বিষয়ে অহেতুক বিতর্ক, উস্কানিমূলক আচরণ না করার জন্য সবাইকে অনুরোধ করছি। ধন্যবাদ।

তার এই পোস্টে অনেকেই মন্তব্য করেছেন। তাদের মধ্যে সৈয়দ কিবরিয়া লিখেন, আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ স্যার শান্তিপূর্ণ সমাধানের জন্য।

শিপন মিয়া লিখেন দ্রুত সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য স্যারকে ধন্যবাদ।

আতাউর রহমান লিখেন, কথায় বলে, একটি সুন্দর উক্তি রত্নের চেয়েও মূল্যবান। একটি চমৎকার অনুপ্রেরণা মূলক উক্তি দুর্বলকে যোগায় শক্তি, দিশেহারাকে দেখায় পথ, অন্ধকারে জ্বালায় আলোর মশাল। হতাশা, ব্যর্থতা, গ্লানির তিক্ত অনুভূতিগুলো যখন ঘিরে ধরে তখন ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য সম্বল হয় একটু আশা, একটুখানি সম্ভাবনার হাতছানি। জীবনের কঠিন সময়গুলোতে আপনার মনোবল ধরে রাখতে হৃদয়ে অনুপ্রেরণা যুগের পর যুগ

বাংলা ক্যালেন্ডার