Breaking News :

জেলা পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্যোগে পুলিশবাহিনীর ভার্বমুর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে

বাংলাদেশ পুলিশ বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে তাদের হারানো ঐতিহ্য ফিরে পেতে করে যাচ্ছেন একের পর এক সামজিক সহ বিভিন্ন কর্মকান্ড এবং প্রতিটি কর্মকান্ডেই তারা সফলতার পরিচয় দিচ্ছেন। এবার নোয়াখালী জেলা পুলিশ অন্যরকম একটি উদ্যোগ নিয়েছেন যা খুবই প্রশংসিত হয়েছে সামাজিক মাধ্যম সহ সমাজের প্রতিটি স্তরে।

যারা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তাদের প্রত্যেকের বাড়িতে খাবার ও ঈদ উপহার হিসেবে নতুন পোশাক পৌঁছে দিয়েছে তারা।

শনিবার সন্ধ্যায় জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলার আলাইয়াপুর ইউনিয়নের মিয়াপুর গ্রামের ১৩ বছর বয়সী করোনা রোগীর বাড়িতে এ উপহার পৌঁছে দেওয়া হয়। উপহার পেয়ে করোনা আক্রান্ত পরিবার পুলিশের কর্মকান্ডে কৃজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

করোনায় আক্রান্ত কিশোরের (১৩) বাবা (অটোরিকশা চালক) বেলাল হোসেন বলেন, করোনা আক্রান্ত হলে কেউই বাড়ির আশে পাশে আসে না। প্রতিবেশি থেকে শুরু করে বাজার কোথায়ই যাওয়া যায় না। সেখানে এই বিপদের সময় এসপি সাহেবের এ উপহার আমাদের জন্য অনেক বড় পাওয়া।

জেলা পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন বলেন, আমরা গরীব এবং অসহায়দের পাশে সর্বদা আছি। আর করোনায় আক্রান্ত শিশুটির পরিবার খুবই গরীব। এরউপর বর্তমানে তার পরিবারের সদস্যরা আইসোলেশনে আছেন। তাদের সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে তার বাড়িতে উপহার সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয়েছে এবং আমি মনে করি পুলিশ কেন সমাজের সকলেরেই উচিৎ এমন পরিবারগুলো পাশে এসে দাঁড়ানো।

তিনি বলেন, অসহায় দরিদ্রদের সেবায় জেলা পুলিশ সবসময় কাজ করে যাবে এবং কাজ করে আসছে। েউ

উল্লেখ্য, ঐপরিবারের সদস্যদের মাঝে উপসর্গ দেখা দিলে গত ২৯ এপ্রিল ১৩ বছর বয়সী ওই কিশোরের বাবা-মাসহ তিনজনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। কিন্তু গত ৬ মে ঐ কিশোরের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তত্ত্বাবধানে ওই কিশোর ও তার পরিবারের সদস্যদের হোম আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

বাংলা ক্যালেন্ডার