Breaking News :

একের পর এক সামাজিক কর্মকান্ডে প্রশংসিত হচ্ছেন শেরপুর পুলিশ সুপার

পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম, সহকারী পুলিশ সুপার বিল্লাল হোসেন সহ পুলিশের অন্যান্য উর্ধবতন কর্মকর্তা এবং অন্যান্য সদস্যদের নিরলস সামাজিক কর্মকান্ডে জেলার সকল স্তরের মানুষ তাদেরকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন।

গরীব অসহায় কৃষকদের ধান কাটা, ভুট্টা তুলতে সহায়তা সহ অন্যান্য কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছেন। করোনা আক্রান্ত এবং অসহায় মানুষের ঘরে পৌছে দিচ্ছেন উপহার সামগ্রী।

পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম পিপিএম এর নেতৃত্বে পুলিশ কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এসব সচেতনতা কার্যক্রমের মধ্যে শেরপুর জেলার সর্বস্তরের মানুষের মাঝে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে মাইকিং, প্রচার-প্রচারণা, লিফলেট বিতরণ এবং কর্মহীন ও অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তা অব্যাহত রেখেছে।

১০ মে রবিবার পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম শেরপুরে কোভিড-১৯ নমুনা সংগ্রহ বুথ স্থাপন করেছেন।

“আমরা আছি জনতার পাশে, “মানবিক পুলিশের চোখে জনতার আকাঙ্খা লেখা থাকে” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে এরই ধারাবাহিকতায় ১০ মে রবিবার সকাল ১১টায় শেরপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে শেরপুর জেলার সদর হাসপাতাল প্রাঙ্গণে কোভিড-১৯ নমুনা সংগ্রহ বুথ স্থাপন করে অন্যান্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন, পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম পিপিএম।

কোভিড-১৯ বুথ স্থাপনকালে বক্তব্য রাখেন, শেরপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ একেএম আনওয়ারুল রউফ। এসময় কোভিড-১৯ বুথ স্থাপনের উদ্বোধন কালে প্রথম নমুনা সংগ্রহ করা হয় শেরপুর সদর থানার সাবেক অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ নজরুল ইসলামসহ অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তা ও স্থানীয় লোকজনের।

এর মধ্যে দিয়েই রবিবার শুরু করা হয় কোভিড-১৯ নমুনা সংগ্রহের কার্যক্রম। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ (সদর সার্কেল) মোঃ আমিনুল ইসলাম, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন, জেলা গোয়েন্দা শাখার ডিবির (ওসি) মোঃ মোখলেছুর রহমান, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) মোঃ মনিরুল আলম ভূঁইয়া, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোবারক হোসেন, শেরপুর জেলা সদর হাসাপতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডাঃ খাইরুল কবির সুমনসহ পুলিশ কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন।

সুত্রঃ বাংলাদেশ পুলিশ

বাংলা ক্যালেন্ডার