Breaking News :

ভারতে করোনা আক্রান্ত ৪০ হাজার ছুঁইছুঁই, মৃত্য ১৩০১ জন

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ভারতের সরকার তথা ভারতীয় জনগন যখন ভাবতে শুরু করেছে যে, করোনাভাইরাসের যুদ্ধে তারা জয় পেয়ে গিয়েছে, ঠিক তখনই প্রায় প্রতি দিন আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যায় রেকর্ড তৈরি হওয়ায় নতুন করে উদ্বেগ বাড়ছে সবার মাঝে।

আজ রবিবারও এক দিনে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যায় নজির সৃষ্টি হয়েছে ভারত জুড়ে। রবিবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা আড়াই হাজারেরও বেশি দাড়িয়েছে। এ দিন নতুন করে সংক্রমণ ধরা পড়েছে ২৬৪৪ জনের। এই নিয়ে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যাও ৪০ হাজার ছুঁইছুই (৩৯৯৮০)।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর হিসেবে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশেজুড়ে মৃত্যু হয়েছে ৮৩ জনের। এই বৃদ্ধিতে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেল ১৩০০ এরও বেশি। রবিবার সকাল পর্যন্ত দেশে মোট মৃত্যু হয়েছে ১৩০১ জনের। এই মৃতদের মধ্যে শুধুমাত্র মহারাষ্ট্রেই মৃতের সংখ্যা ৫০১। ২৬২ জন মারা গিয়েছেন গুজরাতে। মধ্যপ্রদেশে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন ১৫১ জন। ভারতের আর কোনও রাজ্যে অবশ্য শতাধিক মৃত্যু নেই। রাজস্থানে মৃত ৩৫, দিল্লিতে ৬৪।

মৃত্যুর পাশাপাশি করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যাতেও শীর্ষে রয়েছে ভারতের মহারাষ্ট্র। সে রাজ্যে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১২ হাজার ২৯৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন সংক্রমণ ধরা পড়েছে ৭৯০ জনের শরীরে। আক্রান্তের সংখ্যায় মহারাষ্ট্রের পরেই গুজরাত। সেখানে মোট ৫০৫৪ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। আক্রান্তের সংখ্যায় এর পরের রাজ্যগুলি হল মধ্যপ্রদেশ ২৮৪৬, রাজস্থান (২৭৭০), তামিলনাড়ু (২৭৫৭), উত্তরপ্রদেশে (২৪৮৭), অন্ধ্রপ্রদেশে (১,৫২৫), তেলঙ্গানায় (১০৬৩) জন।

শুক্রবার নতুন করে রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৫৭, শনিবার সেই সংখ্যা ৭০। তবে এত দিন মোট করোনা অ্যাক্টিভ রোগীর সংখ্যা দেওয়া হলেও এই বুলেটিনগুলিতে সেই পরিসংখ্যানের উল্লেখ নেই। কো-মর্বিডিটিতে মৃত্যুর সংখ্যার উল্লেখও করা হয়নি। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু কত, তা এই প্রথম লিখিত ভাবে জানানো হয়েছে। বুলেটিন অনুযায়ী, দু’দিনে মোট সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৬০ জন। এ দিন এম আর বাঙুরে মোট ৪০ জন রোগীকে একসঙ্গে ছুটি দেওয়ার সময় সংবর্ধনা দেওয়া হয়। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর হিসেবে পশ্চিমবঙ্গে আক্রান্তের সংখ্যা ৯২২। রাজ্যে মোট মৃত্যু হয়েছে ৩৩ জনের।

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও রাজ্যগুলির দাবি, টেস্টের সংখ্যা বাড়ানোর কারণেই এত সংখ্যক আক্রান্ত বাড়ছে। তার মধ্যেই আবার ছাত্র, পর্যটক ও পরিযায়ী শ্রমিকদের রাজ্যে ফেরার অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্র। রাজ্যে ফিরতেও শুরু করেছেন অনেকে। কিন্তু অনেকেরই আশঙ্কা, এতে আক্রান্তের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। তবে একটাই আশার কথা, এ পর্যন্ত দেশে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১০ হাজার ৬৩৩ জন।

বাংলা ক্যালেন্ডার