Breaking News :

বাংলাদেশের বিরুদ্ধে আবারও অপপ্রচার অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের।

সিরিয়া যুদ্ধের ধংসযজ্ঞের কিছু ছবি দিয়ে বাংলাদেশের নাম ব্যবহার করে বিভ্রান্তিকর , বানোয়াট এবং উদ্দেশ্যমূলক ফেসবুক পোস্ট করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। যেখানে সিরিয়া যুদ্ধের ধ্বংসযজ্ঞের ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। ফেসবুকে পোস্টটি প্রোমোশন করার পর পোস্টটি নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হওয়ায় নিজেদের অফিসিয়াল পেজ থেকে পোস্টটি হাইড করে রাখলেও তা এখনো শেয়ার হচ্ছে বিশ্বজুড়ে।

বিভ্রান্তিকর এই ছবিগুলো ব্যবহার করে “অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল” বাংলাদেশের সুনাম ক্ষুণ্ণ করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

১০ জানুয়ারি ২০২০ ইং নিজেদের অফিসিয়াল ফেইসবুক পেজ থেকে একটি পোস্ট করে সকলকে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের সদস্য হওয়ার আহ্বান জানায় প্রতিষ্ঠানটি। সেই পোস্টে যে ছবি ব্যবহার করা হয়েছে তা সিরিয়ার কিন্তু ক্যাপশনে লেখা হয় বাংলাদেশের নাম ।

purebangla.com

পোস্টের ক্যাপশনে লেখা হয়, “বাংলাদেশ এবং বিশ্বজুড়ে নিরীহ মানুষেরা ভুল সময়ে ভুল জায়গায় থাকার কারণে আক্রমণ, লঙ্ঘন এবং মৃত্যুর মুখোমুখি হয়।আমরা যুদ্ধ এবং সংঘাতের সময়ে ভয়াবহ অপব্যবহারের প্রকাশ করতে লড়াই করি।এই গল্পগুলি শুনে লক্ষ লক্ষ মানুষের একটি আন্দোলনে যোগ দিন।”

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের এই পোস্টে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বাংলাদেশিরা। সেখানে তাদের এক টপ ফ্যান মো. সজীব ইসলাম লেখেন, ‘আপনারা (অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল) কী পাগল হয়ে গেছেন? বাংলাদেশে কোন যুদ্ধ চলছে না। এটা কিভাবে লেখা হলো! এখনি পোস্টটি মুছে দিন।’

১০ তারিখে ফেসবুকে দেয়া এই পোস্ট নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হলেও বিষয়টি নিয়ে অবগত ছিলো না অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ।

উল্ল্যেখ যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশে দারুণ নির্লজ্জ সক্রিয় ছিলো অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। এ সময় বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থা থেকে শুরু করে আরো বেশ কিছু ইস্যুতে নির্লজ্জ মিথ্যাচার করেছে আন্তর্জাতিক এই প্রতিষ্ঠানটি। ২০১২ সাল থেকে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রক্রিয়া নিয়ে দারুণ সরব থাকা এই প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করার চেষ্টার অভিযোগ উত্থাপিত হয়। যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি কার্যকর হবার পরও বাংলাদেশের ট্রাইব্যুনালের সক্ষমতা ও বিচার প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন উত্থাপন করে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।এখনো অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের বিরুদ্ধে তাদের অপতৎপরতা অব্যাহত রেখেছে।

তাদের এই পোস্ট কি তাই প্রমাণ করে না ?

বাংলা ক্যালেন্ডার