Breaking News :

আমানত বিমানবন্দর থেকে প্রবাসীর মূল্যবান জিনিসপত্র গায়েব

৭/১২/২০১৯ তারিখে দুবাই হতে একটি বিমান চট্রগ্রাম আসে। সেই বিমানে ছিলেন বাংলাদেশের একজন যাত্রী। তিনি যখন তার মাল গ্রহন করেন তখন দেখতে পান তার সবগুলো ব্যাগ কাটা।
তিনি জোর দিয়ে বলেন এটি চট্রগ্রাম শাহ আমানত বিমানবন্দরের কর্মীরা করেছেন এবং তারা লাগেজ কেটে রেখে দেয় মুল্যবান জিনিসপত্র।
লাগেজ/ব্যাগ কাটার প্রতিবাদ করতে তিনি সিকিউরিটি অফিসারের কাছে গেলে তিনি জানান এই ঘটনাটি দুবাই এয়ারপোর্টে ঘটেছে। তবে, তথ্য যাচাই বাছাই পূর্বক এবং লাগেজের মালিকের ভাষ্য মতে, এটি বাংলাদেশ এয়ারপোর্টে করা হয়েছে।
নিজ দেশের এয়ারপোর্টে পৌছে একজন প্রবাসির কষ্টার্জিত মালামাল চুরি হলে তার কতটুকু কষ্ট লাগবে সেটা আসলে বলে বুঝানো সম্ভব নয় ।
কয়েকজন কর্মকর্তার সাথে আলাপ হলে (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) তারা জানান, কিছু অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারীদের সাথে একটি সিন্ডিকেট তৈরি করেছে। যার ফলে এই সমস্ত ঘটনা ঘটছে। বাংলাদেশ সহ বিহিঃবিশ্বে আমাদের ভাবমুর্তি ভীষনভাবে ক্ষুন্ন হচ্ছে।
তারা আরোও বলেন, এভাবে চলতে থাকলে কিছুদিনের ভিতর চেইন অব কমান্ড এবং নিয়মাবর্তীতা বলতে কিছুই থাকবে না। অপর দিকে যে সকল কর্মকর্তা প্রতিবাদ করতে যায় তাদেরকে এই সিন্ডিকেট কোণ ঠাসা করে রাখে।

বাংলা ক্যালেন্ডার