Breaking News :

পথভ্রষ্ট মুসলিমদের জন্য বিরাট বড় শিক্ষা আমেরিকার তৈরি আইএস

মুসলিমদের জন্য ১৪শত বছরের মধ্যে সবচেয়ে বড় ধাক্কা হলো আইএস নামক একটি সন্ত্রাসী গোষ্টির কর্মকান্ড। পুরো বিশ্বে এই গোষ্টিটি একটি বিষ ফোঁড়ার মতো হয়ে দাঁড়িয়েছিল গত কয়েকটি বছর যাবৎ।

কিন্তু আসলে কি এই গোষ্টিটি কোন ইসলামিক দল ছিল। সত্য কখনও চাপা থাকে না। যখন আমেরিকা বিভিন্ন মুসলিম দেশগুলোতে একের পর এক ব্যার্থ্য হচ্ছিল ঠিক ঐ মুহুত্বে আমেরিকা এই আইএস নামক জঙ্গি গোষ্টিটি তৈরি করে। প্রথম দিকে অনেক মুসলিম বিভ্রান্তে পরে এই দলটিকে সমর্থন এবং হাজার হাজার তরুন, তরুনী যোগ দেয়। তারা মনে করেছিল এটি হয়তো নবীজির হাদিসের সেই কালো বাহিনী। কিন্তু কিছু দিনের মধ্যেই তাদের ধারনা ভুল প্রমানিত হয় এদের কর্মকান্ডের মাধ্যমে।

ওয়াশিংটন ২০০৯ সালে ইরাকের আবু গরিব কারাগার থেকে আবু বকর আল বাগদাদিকে ছেড়ে দেয়ার পর তারই নেতৃত্বে আইএস গড়ে উঠে। এরপর আইএস ইরাক ও সিরিয়ায় নজিরবিহীন গণহত্যা ও ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে। বাগদাদিকে ব্যবহার শেষে আমেরিকা তাকে হত্যা করল যাতে বাগদাদি ও আইএস সৃষ্টিতে মার্কিন হাত থাকার বিষয়টি কিংবা অন্যান্য গোপন রহস্য যাতে কেউ কখনও জানতে না পারে।

উপসাগরিয় যুদ্ধের সময় রাশিয়াকে হটাতে লাদেন নামক একটি চরিত্র তৈরি করে ছিল আমেরিকা। ২০১১ সালের টুইন টাওয়ার নামক বানানো নাটকের মাধ্যমে সে সময় আফগানিস্তান হামলা করে আমেরিকা এর কিছু বছরের মধ্যেই মারনাস্ত্রের অযুহাত দেখিয়ে ইরাক, লিবিয়া সহ অন্যান্য মুসলিম দেশগুলোতে হামলা চালায় আমেরিকা। তবে, আইএস এই সবচেয়ে ভয়ঙ্কর একটি গোষ্টি যার মাধ্যমে আমেরিকা মধ্যপ্রাচ্যে ভয়াভয় তান্ডব করাতে সক্ষম হয়েছে।

বাগদাদী হত্যা, লাদেন হত্যারই একটি অংশ বিশেষ যা রাশিয়া সহ অন্যান্য দেশগুলো আঙ্গুল উচিয়ে আমেরিকাকে দায়ি করছেন বর্তমান সময়ে। তারই ধারাবাহিকতায় রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, আইএস ও আবু বকর আল-বাগদাদি যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি। বাগদাদি যদি সত্যিই নিহত হয়ে থাকেন, তাহলে বলতে হবে আমেরিকা নিজের হাতে বাগদাদিকে তৈরি করে আবার নিজেই তাকে হত্যা করেছে।

অন্যদিকে, ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মুখপাত্র সাইয়্যেদ আব্বাস মুসাভি বলেছেন, নিহত আবু বকর আল বাগদাদিসহ আইএসের অন্যান্য শীর্ষ নেতারা স্বীকার করেছে তাদের আগমনের পেছনে আমেরিকার হাত রয়েছে। এসব সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর নির্দিষ্ট মেয়াদ রয়েছে এবং ব্যবহার শেষে তাদেরকে ছুঁড়ে ফেলে দেয় আমেরিকা।

বাংলা ক্যালেন্ডার