Breaking News :

স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি ফিল্ম এন্ড মিডিয়া স্টাডির ছাত্র হলেন মাসুদ রানা

শোবিজ দুনিয়াঃ মাসুদ রানা কে হবেন। অনেক জলপনা কল্পনার পর অবশেষে ফলাফল বের হেলো এবং সেই ফলফলের একমাত্র ভাগীদার হলেন রাসেল রানা। আসুন তার কাছ থেকেই শুনি, মাসুদ রানা হওয়ার অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে রাসেল রানা বলেন, শুরু থেকে এ পর্যন্ত আসব, চ্যাম্পিয়ন হব, ভাবতেই পারিনি। কঠোর পরিশ্রম ও চেষ্টা ছিল। মাসুদ রানা হওয়ার স্বপ্ন মাথায় নিয়ে কাজ করে গিয়েছি। বড় একটা প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে সেই হিরো হতে পেরেছি।

তিনি বলেন, আমি রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজে আবেদন করেছিলাম। এর পর গুলশানের একটি হোটেলে প্রথম দিন অডিশন হয়। আনুমানিক সাড়ে পাঁচশত প্রতিযোগী ছিল সেদিন। যারা এসেছিল, সবাই দেখতে সুন্দর, শিক্ষিত। প্রথম অডিশনেই বাদ পড়ে যাওয়ার ভয়ে ছিলাম আমি। সেদিন ১৫ জন ইয়েস কার্ড পেয়েছিল। এই ১৫ জন অপেক্ষমাণ তালিকায় ছিল। পরবর্তিতে মোট ৩০ জনকে নিয়ে আরেকটি অডিশন হয়। সেই অডিশনে আমি ইয়েস কার্ড পাই। এরপর নানা পর্ব পার হয়ে চূড়ান্ত পর্বে এসে চ্যাম্পিয়ন এর স্বাদ গ্রহন করি আমি। আমার খুবই ভাল লাগছে। এ জন্য আমার এলাকার মানুষ, পরিবার, বন্ধুবান্ধব সবাই খুবই আনন্দিত বলে উল্লেখ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক কাজী আনোয়ার হোসেনের সৃষ্ট একটি কাহিনী-চরিত্র হলো মাসুদ রানা। ১৯৬৬ খ্রিস্টাব্দে ধ্বংস পাহাড়প্রচ্ছদনামের প্রথম গ্রন্থটি থেকে শুরু করে সেবা প্রকাশনী থেকে এখন পর্যন্ত মাসুদ রানা সিরিজে এই চরিত্রকে নিয়ে চার শতাধিক গুপ্তচরবৃত্তীয় কাহিনীর বই প্রকাশিত হয়েছে। বাংলাদেশে একসময় কলেজ থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় সহ অন্যান্য পেশার মানুষ মাসুদ রানা বইটি খুব আগ্রহের সাথে পড়ত। বর্তমানে সিরিজটি বাংলা বই এর জগতে স্বকীয় একটি স্থান ধরে রেখে পথ চলছে। সিরিজের প্রথম দুইটি বই মৌলিক হলেও পরবর্তীতে ইংরেজি ও অন্যান্য ভাষার বইয়ের ভাবানুবাদ বা ছায়া অবলম্বনে রচিত হওয়া বইয়ের আধিক্য দেখা যায়। মাসুদ রানার চরিত্রটিকে মূলত ইয়ান ফ্লেমিংয়ের সৃষ্ট জেমস বন্ড চরিত্রটির বাঙালি সংস্করণ হিসেবে সৃষ্টি করেছিলেন লেখক।

মাসুদ রানা চরিত্রটি কেমন?
তার জীবন বিচিত্রে ভরপুর। অদ্ভুত কিন্তু অচেনা নয় এমন রহস্যময় তার গতিবিধি। কোমলে কঠোরে মেশানো নিষ্ঠুর সুন্দর এক অন্তর। পদে পদে তার বিপদ-শিহরন-ভয় আর মৃত্যুর হাতছানি। এটাই মাসুদ রানার চরিত্র।

এই অডিশনের মাধ্যমে ঠিক তার মতো করেই একজনকে খুঁজে নেয়া হয়েছে মাসুদ রানা চরিত্রে। তিনি হলেন রাসেল রানা। নামের সাথেও অনেকটা মিল রয়েছে তার।

চ্যানেল আইতে প্রচারিত ‘মেনস ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী চ্যানেল আই হিরো-কে হবে মাসুদ রানা?’ প্রতিযোগিতায় ‘মাসুদ রানা’ হয়েছেন রাসেল রানা। তিনি স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে পড়াশোনা করেছেন। পড়াশোনা করেছেন ফিল্ম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজে। এরপর তিনি চাকরিতে ঢুকে যান। চাকরীর ফাঁকে ফাঁকে প্রায়ই মডেলিংও করতেন তিনি। তবে মিডিয়া পাড়ায় তিনি ছিলেন অপরিচিত। শোবিজাঙ্গনে অপরিচিত সেই ছেলেটিই এবার মাসুদ রানা চরিত্রে অভিনয় করবেন।

মাসুদ রানা কে?
মাসুদ রানা সেনাবাহিনীর প্রাক্তন মেজর এবং কাল্পনিক সংস্থা বাংলাদেশ কাউন্টার ইন্টেলিজেন্স এর সদস্য এবং তার সাংকেতিক নাম MR-9। এছাড়া রানা এজেন্সি নামক একটি গোয়েন্দা সংস্থাও রানা পরিচালনা করে থাকে।

মাসুদ রানার নায়িকা হবেন কে?
মাসুদ রানা চরিত্রের সঙ্গে ‘সোহানা’ হিসেবে নুসরাত ফারিয়া ও বিদ্যা সিনহা মিমকে সোহানা হিসেবে পছন্দ রাসেল রানার। এখন দেখার বিষয় তার নায়িকা হিসেবে কে আসছে। সে পর্যন্ত আমরাও বিদায় নিচ্ছি।

বাংলা ক্যালেন্ডার